কিভাবে বুঝবো আমি গর্ভবতী। Kivabe Bujhbo Ami Pregnent | প্রেগন্যান্সির টেস্ট। Pregnancy Test Bangla

অনেক কারণে পিরিয়ড মিসের কারণে আমাদের Pregnancy সংক্রান্ত অনেক প্রশ্ন আমাদের মনে কাজ করে, অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের বোঝা সম্ভব হয়ে ওঠে না, এবং আমরা যে প্রশ্ন আমাদের মাথায় ঘোরাঘুরি করে তা হল – কিভাবে বুঝবো আমি গর্ভবতী (Kivabe Bujhbo Ami Pregnent)

আজ আমরা জেনে নেব Pregnancy Test নিয়ে বিস্তারিত এবং প্রেগন্যান্সির টেস্ট সংক্রান্ত কিছু সচরাচর জিজ্ঞেসিত ব্যাপার

প্রথমেই বলে রাখি Pregnancy বোঝার জন্য অনেক Test রয়েছে, সেগুলো নিয়ে আমরা আলোচনা করবো, কিন্তু তার আগে আমাদের বেসিক কিছু জিনিস জানার প্রয়োজন রয়েছে যে এই টেস্টগুলো কি এবং কিভাবে কাজ করে

Contents hide

Pregnant কিভাবে হয়

যখন একটি পুরুষ ভ্যাজাইনার মধ্যে বা এর কাছে বীর্য নির্গত (যৌনসুখের চরমে পৌঁছায়) করে, তখন তার শুক্রাণু তার পেনিস থেকে বের হয় এবং নারীর গর্ভ ও নালীর মধ্যে গিয়ে পড়তে পারে। নারীর গর্ভধারণক্ষম সময় চলতে থাকলে শুক্রাণু নারীর ডিম্বাণুর সঙ্গে গিয়ে মিলিত হয়।

শুক্রাণু যদি ডিম্বাণুকে নিষিক্ত (fertilized) করে, তবে এটি নারীর গর্ভের আস্তরণের (জরায়ুর আস্তরণ) মধ্যে গিয়ে নিজেকে স্থাপিত করে। মুলত এটাই হচ্ছে গর্ভধারণ বা প্রেগন্যান্সি

Pregnancy Test কি

প্রেগন্যান্সি টেস্ট সাধারণত কোনো মহিলা গর্ভবতী কিনা তা নির্ণয় করার অতি গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা।

প্রেগন্যান্সি টেস্ট কিভাবে কাজ করে

মেয়েদের শরীরে এক ধরনের হরমোন থাকে যার নাম HCG হরমোন (human chorionic gonadotrophin)।এই হরমোন কে সাধারনত pregnancy hormone ও বলা হয়ে থাকে

যখন কোনো মহিলা Pregnent হয় তখন তার শরীরে এই হরমোনের পরিমান অনেক বেশি বেড়ে যায়, কারন এটি মুলত প্লাসেন্টা গঠন করে এবং ক্রমবর্ধমান ভ্রূণকে পুষ্টি প্রদান করে

যখন শুক্রাণু দিয়ে ডিম্বাণু নিষিক্ত (fertilized) হওয়ার পর ডিম্বাণু জরায়ুর আস্তরণের সাথে নিজেকে অ্যাটাচ করে, শরীর তখন এই হরমোন তৈরি করা শুরু করে

এটি সাধারণত fertilization এর প্রায় 6 দিন পরে ঘটে। HCG র মাত্রা দ্রুত বৃদ্ধি পায়, প্রতি 2 থেকে 3 দিনে দ্বিগুণ হয়। এটি গর্ভাবস্থার 8 থেকে 11 সপ্তাহের মধ্যে সর্বোচ্চ হয়ে থাকে

আর এই কারনেই মোটামুটি সব প্রকার Pregnancy Test-এ  HCG হরমোনের উপস্থিতি পরিমাপ করা হয়

  • টেস্ট রেজাল্ট নেগেটিভ হবে যদি HCG  হরমোন 5 mIU/ml (milli-international unit/milliliter) এর কম হয়
  • টেস্ট পজিটিভ নেগেটিভ হবে যদি HCG  হরমোন 25 mIU/ml এর বেশি হয়

প্রেগন্যান্সির টেস্ট এর প্রকার (Pregnancy Test Types Bangla)

Pregnancy Test করার জন্য অনেক রকমের বা ধরনের পরীক্ষা রয়েছে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল –

  • Blood টেস্ট 
  • Urine টেস্ট 

রক্ত পরীক্ষা বা Blood test

এটিতে দুই ধরনের পরীক্ষা সাধারণত হয়ে থাকে –

গুণগত বা qualitative hCG test

এখানে দেখা হয় HCG হরমোন উপস্থিত বা অনুপস্থিত

পরিমাণগত  বা quantitative hCG test

এই টেস্ট করে মুলত কতোটা পরিমানে HCG হরমোন উপস্থিত তা দেখা হয়

রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে টেস্ট করলে কিছু জিনিস মাথায় রাখা দরকার –

  • এটিতে খুব তাড়াতাড়ি pregnancy detect করা যায়
  • এতে খরচ অনেক বেশি হয়
  • এই পরীক্ষায় সময় বেশি লাগার সম্ভাবনা থাকে

Urine টেস্ট 

Urine টেস্ট করে তার মধ্যে HCG হরমোনের উপস্থিতি পরীক্ষা করা হয়। এই পদ্ধতি বর্তমানে অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। Urine টেস্ট করে বহু ভাবে Pregnancy Test করা যায় সেই সব পদ্ধতিগুলো নিয়ে আমাদের জেনে নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে ।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে প্রেগনেন্সি টেস্ট

ঘরোয়া পদ্ধতিতে বিভিন্ন ভাবে Pregnancy Test করা যায়। যেমন –

লবন দিয়ে প্রেগনেন্সি টেস্ট (Salt Pregnancy Test Bangla)

প্রতিটি রান্নাঘরের তাকের মধ্যে অবশ্যই লবণ থাকবে। বাড়িতে লবণ দিয়ে গর্ভাবস্থা পরীক্ষার জন্য আপনার যা প্রয়োজন তা হল সকালে সংগ্রহ করা প্রস্রাবের নমুনা, এক চিমটি লবণ এবং দুটি উপাদান মিশ্রিত করার জন্য একটি পরিষ্কার গ্লাস

Method বা পদ্ধতি
  1. প্রথমে, আপনার পরিষ্কার বাটি বা কাপে কয়েক চামচ লবণ রাখুন।
  2. তারপরে, অন্য পাত্রে প্রথম সকালে সকালের প্রস্রাব সংগ্রহ করুন।
  3. লবণের উপর আপনার প্রস্রাব ঢেলে দিন
  4. কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন
Positive রেজাল্ট
 আপনি যদি গর্ভবতী হন, তাহলে আপনি লক্ষ্য করবেন যে সাদা ক্রিম বা দুধ জাতীয় পদার্থ তৈরি হবে
Negative রেজাল্ট
প্রস্রাব এবং লবণের মধ্যে কোন reaction বা বিক্রিয়া ঘটতে দেখতে না পান এবং সেটি কোনো পরিবর্তন না হয় তাহলে আপনি গর্ভবতী নন।

সাবান দিয়ে প্রেগনেন্সি টেস্ট (Soap Pregnancy Test Bangla)

এটি একটি সহজ এবং দ্রুত পরীক্ষা যা কোন ঝামেলা ছাড়াই বাড়িতে করা যায়। এক্ষেত্রে যা দরকার তা হল সাবান। এটি যে কোন প্রকার, ব্র্যান্ড বা উপাদান হতে পারে। এছাড়া, আপনার একটি বাটি এবং দিনের সকালের প্রথম প্রস্রাবের নমুনা প্রয়োজন

Method বা পদ্ধতি
  1. একটি পরিষ্কার কাপে আপনার সকালের প্রথম প্রস্রাব সংগ্রহ করুন। সকালের প্রথম প্রস্রাব কেন? কারন এক্ষেত্রে সকালের প্রস্রাবের এইচসিজি ভালো পরিমানে প্রভাব ফেলে
  2. একটি প্রশস্ত বাটিতে সাবান রাখুন
  3. সাবানের উপরে দুই থেকে তিন টেবিল চামচ প্রস্রাব ঢালুন
  4. 5 থেকে 10 মিনিট কোথাও অপেক্ষা করুন।
Positive রেজাল্ট
যদি সাবান প্রস্রাবের সাথে reaction করে বুদবুদ এবং ফেনা তৈরি করে, তাহলে আপনি গর্ভবতী।
Negative রেজাল্ট
প্রস্রাব এবং সাবানের মধ্যে কোন reaction বা বিক্রিয়া ঘটতে দেখতে না পান এবং সেটি কোনো পরিবর্তন না হয় তাহলে আপনি গর্ভবতী নন।

টুথপেস্ট দিয়ে প্রেগনেন্সি টেস্ট (Toothpaste Pregnancy Test Bangla)

এই পদ্ধতির জন্য, আপনি সঠিক ফলাফল পেতে শুধুমাত্র সাদা টুথপেস্ট ব্যবহার করুন কারন রঙিন টুথপেস্টে অতিরিক্ত রাসায়নিক থাকতে পারে যা ভুল ফলাফল দিতে পারে।

টুথপেস্ট দিয়ে বাড়িতে প্রেগনেন্সি টেস্ট এর জন্য আপনার যা প্রয়োজন তা হল একটি পরিষ্কার বাটি, দুই টেবিল চামচ সাদা টুথপেস্ট এবং খুব সকালে সংগ্রহ করা প্রস্রাব

Method বা পদ্ধতি
  1. একটি খালি কাপ বা পাত্রে নির্দিষ্ট পরিমাণ সাদা টুথপেস্ট চেপে নিন।
  2. একটি পৃথক কাপে প্রস্রাব সংগ্রহ করুন
  3. টুথপেস্ট ধরে কাপ বা পাত্রে ধীরে ধীরে প্রস্রাবের নমুনা ঢেলে দিন
  4. মিশ্রণটি চেক করুন
Positive রেজাল্ট
যদি টুথপেস্ট নীল হয়ে যায় এবং ফেনা হয়ে যায়, তাহলে আপনি গর্ভবতী
Negative রেজাল্ট
টুথপেস্ট প্রস্রাবের সাথে কোনো reaction দেখতে না পেলে আপনি গর্ভবতী নন

চিনি দিয়ে প্রেগনেন্সি টেস্ট (Sugar Pregnancy Test Bangla)

চিনি এমন একটি জিনিস যা আপনি সবসময় বাড়িতে স্টক থাকে। এই কারণে, এই পদ্ধতিটি সবচেয়ে সহজ বলে মনে করা হয়। এই পরীক্ষার জন্য আপনার যা দরকার তা হল ঘুম থেকে ওঠার সাথে সাথে সংগ্রহ করা প্রস্রাবের নমুনা, এক বাটি এবং এক টেবিল চামচ চিনি। আপনাকে যা করতে হবে তা হল

Method বা পদ্ধতি
  1. পরিষ্কার বাটিতে কয়েক চামচ চিনি রাখুন।
  2. আপনার প্রথম সকালের প্রস্রাব সংগ্রহ করুন
  3. চিনির উপর আপনার প্রস্রাব ঢেলে দিন
  4. ওটি মিশাবেন না বা নাড়াবেন না
  5. কি হয় তা দেখতে কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন
Positive রেজাল্ট
প্রস্রাবে উপস্থিত hCG এর মধ্যে চিনি সহজে দ্রবীভূত হয় না। এখন যদি আপনি প্রস্রাবে চিনির সহজে না গলে তাহলে আপনার গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে
Negative রেজাল্ট
যদি চিনি সহজেই প্রস্রাবে দ্রবীভূত হয়, এটির মানে আপনি গর্ভবতী নন

কাঠি বা স্ট্রিপ দিয়ে প্রেগনেন্সি টেস্ট (Sugar Pregnancy Test Bangla)

ঘরে বসে স্ট্রিপ দিয়ে প্রেগন্যন্সি টেস্ট করলে যদি একটি গাড় দাগ আসে তাহলে রেজাল্ট নেগেটিভ, যদি দুটি  লাল দাগ আসে তাহলে রেজাল্ট পজেটিভ। যদি একটি গাড় দাগ একটি হালকা দাগ আসে তাহলেও পজিটিভ ধরা হয় কিন্তু সেক্ষেত্রে ল্যাব এ যেয়ে পুনরায় টেস্ট করে অবশ্যই নিশ্চিত হতে হবে , যদি কোন দাগ না আসে তাহলে এটা ভুল টেকনিক বা স্ট্রিপ এর মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে বুঝতে হবে ।

Method বা পদ্ধতি
  1. সিল করা পাউচটি খুলুন এবং স্ট্রিপটি বের করুন
  2. প্রস্রাবের নমুনায় টেস্ট স্ট্রিপটি উল্লম্বভাবে বা সোজা রাখুন, লক্ষ্য করুন যেদিকে তীরগুলি নিচে নির্দেশ করছে।
  3. প্রস্রাবের উপরিপৃষ্ঠকে পরীক্ষার স্ট্রিপে maximum level line এর (তীর দ্বারা চিহ্নিত) উপরে যেতে দেবেন না।
  4. ১০ সেকেন্ডের জন্য স্ট্রিপটি প্রস্রাবের মধ্যে রাখুন
  5. প্রস্রাবের নমুনা টি ফেলে দিন এবং স্ট্রিপটি বাতাসে শুকিয়ে নিন
  6. ব্যান্ডগুলি উপস্থিত হওয়ার জন্য অপেক্ষা করুন, রেজাল্ট 40 সেকেন্ডের মধ্যে দেখা যাবে।
Positive রেজাল্ট
যদি টেস্ট স্ট্রিপে দুটি রঙিন রেখা দেখা যায়, তাহলে আপনি গর্ভবতী। একটি লাইন অন্যটির চেয়ে হালকা দেখাতে পারে, তবে সেগুলি একই বেধের হবে। আপনি যখন তাড়াতাড়ি পরীক্ষা করছেন এবং আপনার এইচসিজি মাত্রা কম এরকম লাইন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে
Negative রেজাল্ট
যদি পরীক্ষার রেজাল্টে শুধুমাত্র একটি রঙিন রেখা প্রদর্শিত হয় তবে এটি নেগেটিভ এবং আপনি হয় গর্ভবতী নন অথবা আপনি খুব তাড়াতাড়ি পরীক্ষা করছেন। আপনি যদি সেব্যাপারে অনিশ্চিত থাকেন তবে নতুন একটি পরীক্ষার স্ট্রিপ দিয়ে 48 ঘন্টার মধ্যে পরীক্ষাটি পুনরাবৃত্তি করুন

প্রেগনেন্সি টেস্ট কিট (Pregnancy Test Kit Bangla)

Kivabe Bujhbo Ami Pregnent | প্রেগন্যান্সির টেস্ট। Pregnancy Test Bangla

বাজারে অনেক Pregnancy Test Kit পাওয়া যায় যেগুলো মুলত একই পদ্ধতিতে কাজ করে, কিটগুলি আপনার প্রস্রাবে hCG র উপস্থিতি সনাক্ত করে। কিটগুলি কম বেশি সংবেদনশীল হয়ে থাকে কিন্তু অধিকাংশ কিটই pregnancyর চতুর্থ থেকে পঞ্চম সপ্তাহের মধ্যে hCG সনাক্ত করতে সক্ষম

প্রত্যেকটি Pregnancy Test Kit বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে তাই যখন এটি ব্যবহার করবেন কিটের মধ্যে লেখা নির্দেশাবলী অবশ্যই পড়তে হবে এবং সাবধানে অনুসরণ করতে হবে সঠিক রেজাল্ট পাওয়ার জন্য

কিছু প্রেগন্যান্সি কিট ফলাফল দেখানোর জন্য লাইন ব্যবহার করে। এইচসিজি(HCG) হরমোনের উপস্থিতি নির্ধারণ করতে পারলে দুটো লাইন দেখায়। আর না হলে একটা লাইন।

যদি স্ট্রিপে শুধুমাত্র একটি রঙিন রেখা প্রদর্শিত হয়, পরীক্ষাটি নেতিবাচক এবং আপনি গর্ভবতী নন। যদি দুটি রঙিন রেখা দেখা দেয়, পরীক্ষাটি ইতিবাচক, যার অর্থ আপনি গর্ভবতী।

এই লাইনগুলো সাধারণত উজ্জ্বল রঙের হয়; যেমন নীল, লাল বা গোলাপি। কোনও কোনও সময় একটা হাল্কা রঙের দ্বিতীয় লাইন কিটে দেখা যায়। এই লাইনটা এভাপোরেশন লাইনও হতে পারে বা গর্ভধারণ করার প্রথম স্টেজকেও নির্দেশ করতে পারে।

দ্বিতীয় লাইনটা যদি সম্পূর্ণ বর্ণহীন হয়, সেক্ষেত্রে এটি এভাপোরেশন লাইন হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। ইউরিন সম্পূর্ণ এভাপোরেট বা বাষ্পীভূত হয়ে গেলে এই লাইন দেখা যেতে পারে।

এই এভাপোরেশন লাইন সম্বন্ধে যদি ধারণা না থাকে, অনেক সময় ব্যবহারকারী ফলাফল পজিটিভ ভেবে নেন যা একটি False-Positive Pregnancy Test হতে পারে

Pregnancy Test Kit এর রেজাল্ট ভুল হবার সম্ভাবনা খুবই কম হয়ে থাকে তবে এতেও বিভিন্ন কারণে ভুল রেজাল্ট আসতে পারে যেমন –

  • সঠিকভাবে কিট ব্যবহার করতে না পারলে
  • একটোপিক প্রেগন্যান্সির ক্ষেত্রে
  • স্বতঃস্ফূর্ত গর্ভপাত হয়ে গেলে
  • এভাপোরেশন লাইনকে পজিটিভ লাইন ধরে নেওয়া

প্রেগনেন্সি টেস্ট কখন করব

সহবাসের পরে মোটামুটি কখন গর্ভধারণ করতে পারেন , তার একটা আন্দাজ করে নিন। তার থেকে ১৪ দিন পরে প্রেগন্যান্সি টেস্ট কিটের মাধ্যমে ইউরিন টেস্ট করুন। একদম সকালের প্রথম ইউরিন নিয়ে এই টেস্ট করুন। কারণ, এসময়ে মূত্র বা ইউরিনে এইচসিজি(HCG) হরমোনের ঘনত্ব সবথেকে বেশি থাকে। আর তাই, সঠিক ফলাফল আসার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

প্রেগনেন্সি টেস্ট করার নিয়ম

  • পিরিয়ড মিস হওয়ার পরের দিনই যদি কিটে রেসাল্ট নেগেটিভ আসে, তা হলে কয়েকদিন পরে আবার চেষ্টা করুন। শরীরকে যথেষ্ট মাত্রায় এইচসিজি(HCG) হরমোন তৈরি করার সময় দিন।
  • বাড়িতে প্রেগন্যান্সি টেস্ট কিট দিয়ে যদি সঠিক ভাবে, সঠিক সময় মেনে ইউরিন টেস্ট করেন, তা হলে ফলাফল সঠিক হওয়ার সম্ভাবনা কিন্তু ৯৯ শতাংশ। তবে আপনি প্রেগন্যান্ট কিনা, সে বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন একমাত্র আপনার ডাক্তারবাবু
  • যখন গর্ভধারণ করার সম্ভাবনা আছে, তার থেকে ১০-১৪ দিন পরে যদি রেজাল্ট নেগেটিভ আসে, তবে পিরিয়ড মিস হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর আবার টেস্ট করুন।
  • টেস্ট কিটে পজিটিভ রেসাল্ট এলে যত জলদি সম্ভব ডাক্তার দেখান ১০০ শতাংশ নিশ্চিত হওয়ার জন্য। এছাড়া, গর্ভধারণ করার পরে কিছু ওষুধপত্র প্রয়োজন হয় বা জীবনযাত্রায় পরিবর্তন প্রয়োজন হয় অনেকের। সে বিষয়ে আলোকপাত করবেন চিকিৎসকই।
  • যদি শরীরে হঠাৎ কোনও পরিবর্তন লক্ষ্য করছেন বা আপনার মনে হচ্ছে আপনি গর্ভধারণ করেছেন, অথচ টেস্ট কিটে রেজাল্ট নেগেটিভ আসছে; তা হলে একবার ডাক্তারের পরামর্শ নিন।
  • অযথা চিন্তা না করে আনন্দে থাকুন, নিজেকে নিয়ে সতর্ক থাকুন, শরীরের কোনোরকম অস্বস্তি না চেপে রেখে ডাক্তার দেখান ফলে যে কোনও অসুবিধা থেকে অনেকখানি আরাম পাবেন

কিছু প্রশ্নোত্তর

কতদিন পর প্রেগনেন্সি টেস্ট করালে সঠিক ফলাফল পাওয়া যায় ?

মোটামুটি কখন গর্ভধারণ করতে পারেন, তার একটা আন্দাজ করে নিয়ে তার থেকে ১৪ দিন পর প্রেগন্যান্সি টেস্ট করালে সঠিক ফলাফল পাওয়া যায়

কিভাবে প্রেগনেন্সি টেস্ট করা হয় ?

প্রেগন্যান্সি টেস্ট দু’ভাবে করা হয়। এক, মূত্র বা ইউরিন টেস্ট করে এবং দুই, রক্তপরীক্ষা বা ব্লাড টেস্ট করে

মিলনের কতদিন পর প্রেগন্যান্সি টেস্ট করতে হয় ?

মিসড পিরিয়ডের প্রথম দিন থেকে আপনি বেশিরভাগ গর্ভাবস্থা পরীক্ষা করতে পারেন। আপনার পরবর্তী পিরিয়ড কখন হবে তা যদি আপনি না জানেন, তাহলে আপনার শেষ অসুরক্ষিত যৌনমিলনের অন্তত 21 দিন পর পরীক্ষা করুন।

প্রেগন্যান্সির লক্ষণ কি কি ?

গর্ভরোপণ, রক্তপাত এবং খিঁচুনি, শরীরের মৌলিক তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়া, ব্যাথাযুক্ত, কোমল এবং ভারী স্তন, বমি বমি ভাব, মেজাজের হেলদোল

প্রেগনেন্ট কিভাবে হয় ?

যৌনসংগমের সময় শুক্রাণু নারীর ডিম্বাণুর সঙ্গে গিয়ে মিলিত হয়। শুক্রাণু যদি ডিম্বাণুকে নিষিক্ত (fertilized) করে, তবে এটি নারীর জরায়ুর আস্তরণের মধ্যে গিয়ে নিজেকে স্থাপিত করে। মুলত এটাই হচ্ছে গর্ভধারণ বা প্রেগন্যান্সি

রেফারেন্স

Disclaimer
The information included at this site is for educational purposes only and is not intended to be a substitute for medical treatment by a healthcare professional. Because of unique individual needs, the reader should consult their physician to determine the appropriateness of the information for the reader’s situation.
Sharing is Caring ❤

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *